The news is by your side.

অল্পতেই বন্দরের আগুন নিয়ন্ত্রনে- রক্ষা পেল দুই শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

শরমিতা লায়লা প্রমিঃ ২রা জানুয়ারি ২০২০, আজ আনুমানিক সকাল ১০ টা সময় মিরকাদিম ঐতিহাসিক কমলা ঘাট বন্দরের আগুল লাগলে বন্দরের দোকানদার, মিল মালিক,পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীয়ের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করে। লোকজন বিভিন্নভাবে ছুটাছুটি করতে থাকে অনেকে আগুন নিভাতে ব্যস্ত হয়ে পরে, কিছুক্ষণের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের একাধিক গাড়ি এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে এবং আগুন নিভিয়ে ফেলে, খবর পেয়ে মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীন তড়িৎ বন্দরে চলে আসে এবং আগুন নিভাতে ফায়ার সার্ভিসকে সার্বিকভাবে সহায়তা করেন।

ইতিপূর্বে তৎকালীন ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলে ভয়াবহ আগুনে বন্দরের প্রচুর ক্ষতি হয় অনেকে নিঃস্ব হয়ে ব্যবসা ছাড়তে বাধ্য হয়। বাংলাদেশ আললেও আশির দশকে বন্দরের মনহরদি পট্টিতে আগুন লাগে সেই সময়ও প্রচুর ক্ষতি হয়। প্রতিবারই রাতের বেলায় আগুন লাগে, তাই আগুন ভয়াবহ রুপ নেওয়ার আগে জানতে না পারায় সহজে আগুন নিভানো সম্ভব হয় নাই, তাছাড়া সেই সময় যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল ছিল না, আর আজকের মতো আধুনিক ফায়ার সার্ভিসের উন্নত সেবা ছিল না।

আজ দিনের বেলায় আগুন লাগাতে আগুন নিভাতে তড়িৎ ব্যবস্থা নেয়ার কারনে সহজে আগুন নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হয়েছে। পুরাতন প্লাস্টিক গুদাম থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়, পুরাতন প্ল্যাস্টিকের সামগ্রী হওয়ার আগুন লাগার সাথে সাথে প্রচণ্ড ধোঁয়ায় কুণ্ডলীতে এলাকা ছেয়ে যায়। তাই সহজে লোকজন জানতে পারে এবং আগুন নিভাতে ছুটে আসে, ফায়ার সার্ভিসকে খব দেওয়ার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিস চলে আসে। তাছাড়া বর্তমান মেয়র বন্দরের রাস্তা প্রশস্ত করায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি সহজেই আসতে পারে। তবে এই আগুনে তেমন ক্ষতি না হলেও, এই আগুন বন্দরের ব্যবসায়ীদের জন্য সতর্ক সংকেত বলেই অনেকে মনে করে, তাই আগুন প্রাথিমিকভাবে নিয়ন্ত্রনে আনার বিভিন্ন সামগ্রী প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সংরক্ষিত রাখা জররি বলে মেয়র মনে করেন, এই বিষয় ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষেকে বিধিমতে ব্যবস্থা নিতে হবে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.