The news is by your side.

আবদুল্লাহপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ডসমূহের সম্মেলন নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্তহীনতায় আটকে আছে

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

শরমিতা লায়লা প্রমিঃ টঙ্গিবাড়ী উপজেলাধীন আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ডসমূহের সম্মেলন নেতৃবৃন্দের অসহযোগিতার কারনে আটকে আছে বলে তৃণমূল নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন।অধিকাংশ ওয়ার্ডের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক মনে করেন গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পরেছে। নৌকা মার্কার প্রার্থীর পরাজয় এবং বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস মার্কার প্রার্থী জয়ী হওয়ায় এখন আনারস মার্কার সমর্থকরা নিজেদের প্রভাব বিস্তার করে বিভিন্ন দল থেকে আগতদের নিয়ে কমিটি করতে ইচ্ছা পোষণ করায় এই বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে। তাছাড়া বিদ্রোহী প্রার্থী টঙ্গিবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জগলুল হালদার ভুতু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জয়ী হওয়ায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির সমর্থন পাচ্ছেন আর যারা নৌকা মার্কার পক্ষে নির্বাচন করেছে আওয়ামী লিগের পোড়া খাওয়া পরীক্ষিত নেতাকর্মী তারা একটু বেকায়দায় আছে বলে জানা যায়। তাই পুরাতন ওয়ার্ড সভাপতি/ সাধারন সম্পাদকদের সরিয়ে অধিকাংশ ওয়ার্ডে নতুন এবং হাইব্রিডদের সভাপতি / সাধারন সম্পাদক পদে আনার চিন্তা ভাবনা চলছে। তাছাড়া বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নৌকা মার্কার পক্ষে নির্বাচন করেন এবং সাধারন সম্পাদক বিদ্রোহী প্রার্থীর আনারস মার্কার নির্বাচন করেন যার কারনে সাধারন সম্পাদক নিজের পছন্দের লোকদের কমিটিতে অগ্রাধিকার দিতে চান কিন্তু সভাপতি পুরাতন ত্যাগী নেতাদের বাদ দেওয়ার পক্ষে নন তাই সাধারন সম্পাদক সভাপতিকে ওয়ার্ড কমিটি গঠনে অসহযোগিতা করছে বলে সভাপতির লোকজন মনে করেন। এই বিষয় দীর্ঘ দিনের আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং চার বারের নির্বাচিত জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আব্দুল রহিম বলেন আমরা চাই একটি সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ কাউন্সিল এর মধ্যদিয়ে ওয়ার্ড কমিটি গঠন করতে, কোন চাপিয়ে দেওয়া কমিটি সত্যিকারের কোন আওয়ামী লীগ নেতা কর্মী সমর্থকরা মেনে নিবেন না। এই বিষয় আমি জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক মহোদয়ের নিকট কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠনের আবেদন করেছি, নেতৃবৃন্দ আমাকে বলেছে গঠনতন্ত্র মোতাবেন কমিটি গঠন করা হবে, এই বিষয় তারা যথাসম্ভব তারাতারি ব্যবস্থা নিবেন। এখানে উল্লেখ্য যে সাধারন সম্পাদক সদস্যপদ নবায়ন না করে বই নিজের জিম্বায় রেখে দিয়েছে বারংবার সদস্য বই ওয়ার্ড পর্যায় বিতরনের কথা বললেও তিনি কথা কানে নিচ্ছেন না বা অপারগতা প্রকাশ করে আমার নিকট বই হস্তান্তর করছেন না, এমনকি জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক এর কথাও আমলে নিচ্ছেন না। এই সব কারনেই আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডসমূহের কমিটি গঠন থমকে আছে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: