The news is by your side.

করোনার থাপায় আর্থিকভাবে জর্জরিত আওয়ামী লীগের অসহায় কর্মী-সমর্থকদের পাশে থাকুন

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

শরমিতা লায়লা প্রমিঃ সারা বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের থাপায় জর্জরিত বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের সাথে বাংলাদেশের মানুষও আজ আক্রান্ত, বেশী সংখ্যক মানুষ অসহায়, নির্ভীক, ভয়ভিতির মধ্যদিয়ে দিন কাতাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষকে এই ভয়াবহ অবস্থা থেকে রক্ষায় আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন, তবে আমাদের মাঝে কিছু অসৎ অর্থলোভী পাষণ্ড নানাভাবে প্রধানমন্ত্রীর এই মানবিক কর্মকাণ্ডকে নস্যাৎ করতে নানা ধরনের অপকর্মে লিপ্ত হয়েছে এমনকি কিছু জনপ্রতিনিধি ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা অসহায় মানুষের সাহায্য চুরি করছে, তবে তাদের অধিকাংশ জনপ্রতিনিধি হল আওয়ামী লীগ নামধারী কাউয়্যা আর হাইব্রিড জনপ্রতিনিধি যারা অনেক অর্থের মালিক কোন এম.পি, মন্ত্রি, নেতাকে হাত করে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বাগিয়ে নিয়ে জনপ্রতিনিধি হয়েছে, কিন্তু বদনাম হচ্ছে,বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগ আর আওয়ামী লীগের সকল স্তরের লোকদের, আর যারা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন,শেখ হাসিনাকে ভালোবাসের, আওয়ামী লীগকে ভালোবাসেন তারা কখনো অন্যায় কাজে জড়িত হন না। অথচ তারাই আওয়ামী লীগের দুঃসময় আন্দোলন, দলীয় কর্মসূচি পালনে এবং নির্বাচনে সামনের কাতারে থাকেন, অথচ প্রভাবশালী মন্ত্রি, এম পি, নেতারা তাদের চিনেনা, দুসময়ের এই তৃণমূল নেতা কর্মী সমর্থকদের দূরে রাখেন কারন তারা উচিৎ কথা বলেন, বি এন পি জামাতের লোকদের সাথে মন্ত্রী,এম পি, নেতাদের দহরম মহরম পছন্দ করেন না। আর মাল পানি কামাইতে নিজের শক্তি বাড়াতে সর্বোপরি দুর্নীতি করতে হলে এই অর্থশালীদের বেশি প্রয়োজন আওয়ামী লীগের প্রভাবশালীদের। তাই যতটা সম্ভব দলীয় পরীক্ষিত নেতা কর্মী আর সমর্থকদের আচ্ছা মতো সাইজ করে দূরে রাখেন।এই ভয়াবহ করোনা ভাইরাসের কারনে লক্ষ লক্ষ তৃনমূল নেতা কর্মী সমর্থক আজ চরম দুর্দিন অনাহারে অদ্ধাহারে দিন কাটছে, হাত পেতে যেমন সরকারি সাহায্য নিতে পারছে না তেমনি তাদের নাম প্রসাসন, জনপ্রতিনিধিদের তালিকায় ঠাই পাচ্ছে না কারন তারা যে আওয়ামী লীগের পরিক্ষিত তৃনমূল নেতা, তারাও কিছু বলতে পাচ্ছে না কারন প্রসাসন যে সকল জনপ্রতিনিধি দিয়ে তালিকা বানাচ্ছে, তাদের শরিলে যে যুদ্ধাপরাধী, বঙ্গবন্ধুর খুনি ও স্বাধীনতা বিরোধীদের গন্ধ, মুজিব আদর্শের সৈনিকরা কীভাবে এই কুলাঙ্গারদের কাছে নতি স্বীকার করে, না খেয়া মরে যাবে তবু তাদের কাছে মাথা নত করবে না, বঙ্গবন্ধুর প্রতি বিশ্বাসের অমর্যাদা করবে না। আজ যারা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী অর্থশালী নেতা, মন্ত্রী, এম পি আপনারা কি কখনও খোঁজখবর নিয়েছেন এই তৃণমূলের অসহায় নেতা- কর্মী সমর্থকদের? নেন না, কেন নিবেন, এখন যে আপনারা নেতা, এম পি, মন্ত্রি তাদের হাতে যে ময়লা, গায়ে যে ঘামের গন্ধ, যাদের পরিশ্রমে আজ আপনারা মন্ত্রি, এম পি, নেতা তাদের ভুলে গেলেন, যাদের জন্য আজ আপনি হারাধন তাদের ভুলে গেলেন গোবর্ধন, যাই হোক আওয়ামী লীগকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে, মন্ত্রি-এম পি-নেতা হতে হলে তৃণমূলের এই অসহায় লোকদের প্রতি সদয় হন, দন্ধ, গ্রুপিং বাদ দিয়ে মুজিব আদর্শের সৈনিকদের বাচিয়ে রাখুন, তাদের সম্মাঞ্জনকভাবে পরিবার পরিজন নিয়ে বেঁচে থাকার ব্যবস্থা করুন, নচেৎ আওয়ামী লীগ আপনাদের ক্ষমা করবে না, ভুলে যাবেন না যারা ক্ষমতার মজা উড়াতে, মালপানি কামাইতে আপনাদের সাথে পঙ্গু পালের মতো বাসা বেধেছে, ক্ষমতার মধু চাটছে, গরিভের চাউল চুরি করছে, দুর্দিনে তারা সটকে পরবে, তখন কিন্তু তৃণমূলের এই অসহায়রাই একমাত্র ভরসা হবে,  আপনার 

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.