The news is by your side.

মিয়া চান্দের পত্রালাপ

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আপু মনি,

কেমন আছেন, আমরা কামনা করি। পরম দয়াময় আল্লাহ বাব্বুল আলামিনের পরম করুণায় মঙ্গঁল মতই আছেন। আপনি ভাল থাকলে ভাল থাকে বাংলাদেশ, বাংলাদেশের আপাময় জনগন, দেশের মানুষকে ভাল রাখার জন্য ভাবেন। নিদ্রাহীন পরিশ্রম করেন। তার সিকি ভাগও যদি আপনার মন্ত্রি, এম.পি আর আমলারা ভাবতেন তাহলে আপনার পিতা জাতির পিতা বঙ্গঁবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের একটি সুখী সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ বিনির্মানে আপনাকে বেগ পেতে হতো না। তারপরও আপু মণি, আপনার মেধা, পরিশ্রম,সততা, কর্ম নিষ্ঠার ও কঠোর পরিশ্রমের ফলে আজ বাংলাদেশ বঙ্গঁবন্ধুর স্বপ্নপূনণে দ্রুততার সাথে এগিয়ে যাচ্ছে। মাঝে বাংলাদেশ বিরুধীদের ও ৭৫ সালের বঙ্গবন্ধুকে হত্যাকারী, হত্যার ষড়যন্ত্রকারীদের বিভিন্ন ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত্রের ফলে দেশের উন্নয়নের গতি কমলেও থেমে থাকেনি। বাংলাদেশকে আজ বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের মডেল হিসাবে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছেন, আপনার এই সফলতায় বিশ্ব নেতৃবৃন্দ অবাক হয়েছেন তারা আজ আপনার সফল্যের প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

প্রাকৃতিক গতভাবেই বাংলাদেশ ঝড়া, খড়া আর অতি বর্ষনের দেশ প্রতি বৎসরই সুপার সাইক্লোনে আক্রান্ত হয়ে প্রচুর ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয় এবং আপনি বুদ্ধিমত্তার সাথে সব কিছুকেই সাহসের সাথে মুকাবেলা করে জয় করতে পেরেছেন।

মিয়া চান্দের পত্রালাপ

আপু মনি,

আপনি যেমন দয়ালু, সাহসী তেমনী অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপোষহীন। পৃথিবীর এমন কোন দেশের নাই যে দেশের সরকার নিজ দলের লোকদের অন্যায় কাজকে কমবেশী ছাড় দেন নাই।

বি.এন.পি জাতীয় পার্টির আমলে নিজ দলের লোকজন অন্যায় অপরাধ করতেন এবং সেই সময়ে রাষ্ট্রপ্রধানরা অন্যায়কারীকে শুরু ছাড়ই দিতেন নাই অবৈধভাবে উর্পাজিত অর্থের-সম্পদের ভাগ নিতেন, বরং তাদের অপরাধের কথা কেহ বললে তাকে চরম খেশারত দিতে হতো। তাই সেই সময় নিজ দলের কোন অপরাধী চিহ্নিত হওয়া দূরে থাক কেহ নামও উচ্চারণ করতে সাহস পেত না।  

আপু মনি,

বাংলাদেশের গ্রামগঞ্জের মানুষ প্রায়ই বলে থাকে শেখের বেটী ধরছে তুই যে দলেরই হস না কেন? তুই যদি অপরাধ করে থাকিস তোকে সাঁজ পেতেই হবে। তাই আজ জিয়া, এরশাদ, খালেদা নিজামীদের আমলে অপরাধীরা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনে আশ্রয় নিয়েও ছাড় পাচ্ছে না। কারণ অন্যায় অনিয়মের বিষয় আপনার জিড়ো টলারেন্স, অপরাধী যেখানে থাক, যত বড়ই হোক তাকে সাঁজা পেতেই হবে। আইনশৃঙ্খলাবাহিনি  চিরুনী অভিযান চালিয়ে চিমটা দিয়ে অপরাধী ধরছে আর আদালত তারে জেলে ডুকাইতাছে। তবে এটা আবারও প্রমানিত হলো। অপরাধ করলে মনে যেমন ভয় জন্ম নেয় একটি অপরাধ ১০টি অপরাধের জন্ম দেয়। তাকে ধরা পড়তেই সাজা ভোগ করতেই হয়। আর যিনি সততার সাথে জীবন যাপন করেন, কোন ভয়ভীতি তাকে কাবু করতে পারে না। আপনার মতো সততার শক্তিতেই সবকিছু জয় করতে পারে।

আপু মনি,

বাঙালীদের সুখ বুজি চিরকাল রয় না, ভয়াবহ করোনা ভাইরাস এসে আমাদের উন্নয়ন, জীবন সব কিছু স্তব্দ করে দিয়ে গেছে। এই বৈশ্বিক বিপদের সময়ও একশ্রেণির ক্ষমতা লিপ্সু বাংলাদেশ বিরুধীরা যারা সরকারে প্রশাসনে,  চিকিৎসায়, মিডিয়ার সর্বক্ষেত্রেই বিরাজমান তারা নানা ধরনের গুজব রটিয়ে মিথ্যাচার করে বাংলাদেশের মানুষের মনে ভয়ভীতি ডুকিয়ে দিয়ে মরার আগেই মেরে ফেলছে। এই করোনা ভাইরাস কাউকে চিনেনা। সেই করোনা নিয়ে অসৎ রাজনীতি করছে। সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে মিডিয়া গুলো আগ বাড়িয়ে বিভিন্ন টকসু নামে মানুষের মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। সরকারকে কোয়দায় ফেলতে চাচ্ছে।

কিন্তু আপু মনি, আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলাদেশের মানুষ জানে বাঘের থাপা থেকে রক্ষা পেলেও অন্যায় করে আপনার কাছ থেকে রক্ষা পাবে না, আপনি দেশের এই দুর্যোগপূর্ণ করোনাময় সময়ে অত্যন্ত শাহসের সাথে সব কিছুই পর্যবেক্ষন করছেন। আপনার নীতি আগে করোনা থেকে মানুষকে রক্ষা করবো। পরে এই বিভ্রান্তকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাস পিছনের দিকে হাটছে। তথাকথিত বিশেষ্য নামধারীদের চোকা নাক বোতা করে দিলেন। তবে আমাদের দেশের রন্দ্রে বন্দ্রে স্বাধীনতা বিরুধী ও বঙ্গঁবন্ধুর খুনীদের প্রেতাত্মা বিচরণ করছে তাদের নিশ্চিহ না করা পর্যন্ত বাংলাদেশ বিরুধী ষড়যন্ত্র চলতেই থাকবে, করোনাময় সময় দেশের  মানুষের জন্য আপনার সময় অনেক মূল্যবান, পত্রালাপে কোন ভূলক্রটি হলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ রইল। আপনি ভাল থাকবেন, পরিবার সমেত সুখে শান্তি থাকবেন। দেশের মানুষ ভাল থাকুক এই কামনা  করছি  পরিশেষে আপনার সুস্বাস্খ্য ও মঙ্গল কামনা করে শেষ করছি। ইতি আপনার আদরের ছোট ভাই মিয়া চান। (চলবে)

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed.