The news is by your side.

মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থী শেখ হাসিনা ও ওবায়দুল কাদের নির্বাচিত

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

শরমিতা লায়লা প্রমিঃ আজ ২১শে ডিসেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২ দিনের কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয় ইঙ্গিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট ভবনে, সকাল থেকেই কাউন্সিলা্রা লম্বা লাইনে দাড়িয়ে পরে সকাল ১০ তার মধ্যেই কাউন্সিল হল রুম ভরে যায়, এর পর আওয়ামী সভাপতি শেখ হাসিনা আসা মাত্র প্রবেশ দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়।সকালের তীব্র ঠাণ্ডা আর ঘন কুয়াশার জন্য আশে পাশের জেলা থেকে কাউন্সিলারদের আসতে সকাল ৯ তা বেজে যায়, লম্বা লাইনে দাঁড়ানোর পরও লাইন গেটের সামনে আসার পরই ১০ টা বেজে গেলে গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়, বিপুল সংখ্যক কাউন্সিলারদের বাহিরে দাড়িয়ে থেকে মাইকে অনুষ্ঠান উপভোগ করতে হয়, মুন্সীগঞ্জ জেলা থেকেও অধিকাংশ কাউন্সিলারদের আস্তে ৯টা বেজে যায় এবং কাউন্সিলারদের উপস্থিতির বিষয় খোঁজখবর নিতে গিয়ে মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকদ্বয় ও হলরুমে প্রবেশ করতে পারেন নি, তারা গেটের সামনে দাড়িয়ে অন্যান্য কাউন্সিলারদের নিয়ে সম্মেলন উপভোগ করেন, এক পর্যায় সান টি ভির এক সাংবাদিক এর প্রশ্নের উত্তরে মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ লুতফর রহমান বলেন আমরা মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থকে সবাই একমত পোষণ করিয়াছি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে আমরা সভাপতি পদে পেতে চাই আর তিনি যাকে নিয়ে কাজ করতে পছন্দ করবেন তাকে যেন সাধারন সম্পাদক পদে বেছে নেন। তবে নেত্রী যদি বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও বায়দুল কাদের ভাইকে আমারও কাজ করার সুযোগ দেন আমরা আনন্দিত হব। তিনি আরও বলেন, মুন্সীগঞ্জ জেলাবাসীর জন্য গর্বের বিসয় মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ মহিউদ্দিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর চীফ সিকিউরিটি অফিসার ছিলে, থাকতেন বঙ্গবন্ধুর বাসায়, বঙ্গ মাতা, শেখ হাসিনা, শেখ রেহানা মহিউদ্দিন ভাই বলে সম্বোধন করতেন, বঙ্গবন্ধু পরিবারের একজন সদস্যের মতো বাসায় থাকতেন, তাই শেখ হাসিনা বা শেখ রেহানা যতদিন বেঁচে থাকবেন আমরা ততদিন তাদের প্রতি অনুগত্য থাকব ইনশাল্লাহ।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.