The news is by your side.

সহযোদ্ধাদের কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল রহিম

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

কামাল উদ্দিন আহাম্মেদঃ একাত্তরের রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধে যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল রহিম(৬৬) আজ রাত ১০.১৫ মিনিটে নিজ বাসভবনে হার্ট স্ট্রোকে মারা যান ( ইন্নালিল্লাহির —রাজেউন ) মৃত্যুকালে তিনি অসুস্থ স্ত্রী, দুই ছেলে, তিন মেয়ে, বহু নাত নাতনী ও আত্মীয় স্বজন এবং সহযোদ্ধাদের রেখে যান। মরহুম আব্দুল রহিম এর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।মরহুম কমান্ডার আব্দুল রহিমের পিতা মরহুম জব্বর মাতাব্বর ছিলেন একজন বি.টি মেম্বার ও ধর্মপ্রাণ মুসলমান।

তার এই অকাল মৃত্যুতে বিভিন্ন সংগঠন এবং বিশিষ্টজন শোক প্রকাশ করেন, তাদের মধ্যে মধ্যে মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ মহিউদ্দিন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট এর সাবেক কমান্ডার মোঃ আনিছ উজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ লুতফর রহমান, মিরকাদিম পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীন, জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অ্যাড. সোহানা তাহমিনা, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ও চেতনায় একাত্তর সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহাম্মেদ, মিরকাদিম পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন মিলন,বীর মুক্তিযোদ্ধা আক্তার ফারুক তোতা,বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলি আকবর মিলন, বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ.টি. এম. দেলোয়ার হোসেন, মিরকাদিম মানব কল্যাণ পরিষদ সভাপতি কামরুল ইসলাম জাহাঙ্গির, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব বিরহী মুক্তারসহ প্রমুখ সুধিজন,তারা শোক প্রকাশ করে বলেন কমান্ডার আব্দুল রহিম ছিলেন একজন ভাল মনের মানুষ, তার মধ্যে কোন হিংসা অহংকার ছিল না, সবার সাথে আন্তরিকতার সাথে চলাফেরা করতো। আমরা আশা করবো আমাদের স্বাধীনতা অর্জনে এই বীর মুক্তিযোদ্ধার অবদান চিরদিন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হবে। তার মৃত্যুতে আমরা গভীর শোক প্রকাশ করে মহুমের আত্মার শান্তি কমনা করি এবং শোক সন্ত্রাপ পরিবারের প্রতি সম-ব্যদনা প্রকাশ করছি।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.