The news is by your side.

সাংবাদিকতা এসময়, এদেশে

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

শেখ আলি আকবরঃ সংবাদপত্রকে বলা হয় সমাজের দর্পণ এবং এতে যারা সমাজের চিত্র তুলে ধরেন তাদেরকে বলা হয় সাংবাদিক এবং সাংবাদিকদেরকে বলা হয় সমাজের বিবেক। এক সময় ছিল যখন সাংবাদিকরা ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধার পাত্র। কিন্তু হালে কিছু কিছু সাংবাদিক এবং কিছু কিছু সংবাদপত্রের কর্মকর্তাদের কর্মকান্ডের ফলে সমাজের বিবেক হিসেবে আখ্যায়িত এসব সংবাদপত্র ও সাংবাদিকরা বিতর্কিত। ফলে যারা ভালো মনের সাংবাদিক তারাও আজ অসম্মানিত হচ্ছেন। বর্তমানে এমনও নামধারী সাংবাদিক রয়েছেন যে সংবাদের ‘স’ ও লিখতে জানেন না এবং অনেক পত্রিকার সম্পাদক রয়েছেন যারা সম্পাদকীয় লিখতে জানেন না। আবার এমন অনেক সাংবাদিক রয়েছেন যারা সংবাদ লিখতে পাড়েন, কিন্তু বানান লিখতে জানেন না এবং তাদের কোনও ভাষা জ্ঞান নেই।দারির পরে এবং, ও, লেখা ভাষাগত ভুল। কিন্তু হালে অনেক পত্র পত্রিকায় ও বই পত্রে দারির পর এবং লিখা হচ্ছে।

বর্তমানে এমন কিছু পত্রপত্রিকা রয়েছে যারা প্রকৃত পক্ষে নিজেরা যেমন অজ্ঞ তেমনি তারা যেসব সাংবাদিক নামধারী মানুষকে নিয়োগদেন তারাও অজ্ঞ। ঐসব সংবাদপত্রের সম্পাদকগণ ৩ থেকে ৫ ও ১০ হাজার টাকার বিনিময়ে পরিচয়পত্র দিয়ে থাকেন। পরে ঐসব নামধারী সাংবাদিকগণ নানা অপকর্মের সাথে জড়িয়ে পরেন। এদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা মাদকাশক্ত। কেউ কেউ আবার মাদকের ব্যবসাও করে থাকেন। অনেক মাদক ব্যবসায়ীও আবার টাকা দিয়ে সংবাদ পত্রের পরিচয় পত্র কিনে নিয়ে সাংবাদিকতার অন্তরালে মাদকের ব্যবসা করে থাকেন।আমাদের সমাজের মানুষেরও সচেতনতার অভাব রয়েছে। তারা মনে করেন যার কাঁধে বড় একটা ক্যামেরা রয়েছে এবং যে হোনডায় চড়ে বেড়ান তিনিই বড় সাংবাদিক।

এছাড়া বর্তমানে তৃতীয় শ্রেণীর অনেক সংবাদপত্র রয়েছে যেগুলির প্রতিনিধিদেরকে এলাকায় পত্রিকা বিক্রি ও বিজ্ঞাপণ সংগ্রহের শর্ত বেধে দেওয়া হয়। যে কারণে বেকার যুবকরাও ঐসব পত্রপত্রিকার পরিচয়পত্র যোগার করে দুইনম্বরি বা হলুদ সাংবাদিকতার সাথে জড়িয়ে পড়েন। ঐসব পত্রপত্রিকার মালিক পক্ষ মফঃসল সাংবাদিকদেরকে এক টাকাও ভাতা দেন না। উপরন্ত তারা টাকার বিনিময়ে পরিচয়পত্র দিয়ে থাকেন। আর ঐসব কথাকথিত সাংবাদিকগণ বলে বেড়ান যে আমাকে অত হাজার অত হাজার টাকা সম্মানী ভাতা দেন। ফলে ভালো মনের সাংবাদিকরা এখন মানসম্মান হারাচ্ছেন। কারণ একজন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে অপকর্মের কথা প্রকাশ হলে তা গোটা সাংবাদিক পক্ষকেই হেয় প্রতিপন্ন করে। তাই প্রকৃত সাংবাদিক ভাইদের প্রতি অনুরোধ আপনারা এসব অপসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.