The news is by your side.

সালিশের নামে বীর মুক্তিযোদ্ধা হত্যা, গ্রেপ্তার ২, দ্রুত বিচার দাবী

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

চেতনায় ডেস্কঃ টাঙ্গাইলের বাসাইল জেলায় গ্রাম্য সালিশে এক বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে ও গলাটিপে হত্যার ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আব্দুল লতিফ খান (৬৫) নামে ওই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার হাবলা ইউনিয়নের মটরা গ্রামে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

আজ শনিবার সে ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আব্দুল লতিফ খানের ছেলে হাবিব খান বাদী হয়ে শনিবার ১১ জনের নাম উল্লেখ করে বাসাইল থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলার পর দুপুরে মটরা এলাকা থেকে হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত দুই আসামি লিটন (৪০) ও উজ্জ্বলকে (৩৮) গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাসাইল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ গণমাধ্যমকে বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ খান হত্যার ঘটনায় বাসাইল থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, কয়েক দিন ধরে মুক্তিযোদ্ধা লতিফ খানের সঙ্গে প্রতিবেশী আবু খান ও তার ছেলে পাভেল এবং পারভেজের পুকুরের মাছ নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরপর তা মীমাংসার জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহজাহান খানের বাড়ির উঠানে শুক্রবার বিকেলে সালিশের আয়োজন করা হয়।

সালিশের মধ্যে কথাকাটাকাটির জেরে আবু খান, পাভেল ও পারভেজসহ কয়েকজন যুবক লতিফ খানকে পিটিয়ে ও গলাটিপে আহত করেন।

এরপর গুরুতর আহত অবস্তায় তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে স্থানীয়রা নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

জনসম্মুখে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা করা নিয়ে সারাদেশব্যাপি নিন্দার জড় বহে যাচ্ছে, দ্রুত বিচার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিচার দাবি করে খুনি ও এর পিছনের ইন্দনদাতাদের দ্রুত গ্রেফতার ও দ্রুত বিচার দাবী করা হয়। 

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed.

%d bloggers like this: