The news is by your side.

প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল রহিম এর স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

সৌরব আহাম্মেদ জণিঃ মিরকাদিম পৌরসভার কৃতিসন্তান মুক্তিযুদ্ধে যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল রহিম এর স্মরণ সভা ২৮শে নভেম্বর, রিকাবি বাজারস্থিত  চেতনায় একাত্তর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। গত ১০ই নবেম্বর দেশের এই কৃতি সন্তান নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন ( ইন্না—- রাজেউন )।

মিরকাদিম পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ও চেতনায় একাত্তর এর যৌথ আয়োজনে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলের প্রধান অতিথি চেতনায় একাত্তর সম্পাদক, মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহাম্মেদ, মুখ্য আলোচক সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কাদের মোল্লা।

মিরকাদিম পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের কমান্ডার খন্দকার দেলোয়ার হোসেন মিলন এর সভাপতিত্বে এবং সমাজ সেবক কামরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় স্মৃতিচারণ মুলক বক্তব্য রাখেন, মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহাম্মেদ, নাট্যকার-অভিনেতা মোঃ আলী, মোঃ হোসেন মোল্লা, মিরকাদিম পৌর আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল বাসিত লাভলু, শাহ আলম মৃধা, বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক গোলাম ফারুক জমিদার, নাট্যকার অভিনেতা প্রযোজক বিরহী মুক্তার, নাজির ঢালী। কমান্ডার আব্দুল রহিম এর সহযোদ্ধাদের মধ্যে স্মৃতিচারণ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আক্তার ফারুক তোতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসার জহিরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ, বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা নিতাই চন্দ্র রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আবুল বাসার, সৌরব আহাম্মেদ জনি, শান্ত, উজ্জ্বল মিয়া প্রমুখ। পিতার স্মৃতিচারণ করে আবেক ঘন বক্তব্য দেন প্রয়াত কমান্ডার আব্দুল রহিম এর কনিষ্ঠ সন্তান শেখ শাদী।

মুখ্য আলোচক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কাদের মোল্লা বলেন মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযুদ্ধে অনন্য অবদান রেখেছে, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত আব্দুল করিম বেপারী এই এলাকার সন্তান ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধকালিন কমান্ডার ছিলেন ওমর আলি ও আব্দুল রহিম, কমান্ডার আব্দুল রহিমের অকাল মৃত্যুতে আমরা একজন সত্যিকারের  সহযোদ্ধাকে হারালাম, আমি সব সময় কমান্ডার আব্দুল রহিমের পরিবারের সদস্যদের পাশে থাকব, সকল ধরনের সহযোগিতা করব।

প্রধান অতিথির বক্তব্য বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহাম্মেদ বলেন কমান্ডার রহিম এর আশা আকাঙ্ক্ষা পুরনে আমরা কাজ করে যাব। মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি রক্ষায় মাননীয় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রীর সিদ্ধান্তমতে এলাকার সকল রাস্তা ব্রিজ মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নাম করনের উদ্যোগ নেওয়া হবে, গোয়ালগুন্নি থেকে পুকুর পারের রহিম এর বাড়ির রাস্তাটি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল রহিম রোড নামকরণের প্রস্তাব করছি। আলোচনা শেষে কমান্ডার আব্দুল রহিমের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং পরিবারের সদস্যদের জন্য দোয়া করা হয়।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Leave A Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: