The news is by your side.

ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী মুক্তিযোদ্ধা স্কলারশিপ

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

চেতনায় ডেস্কঃ আমরা অত্যন্ত আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে, একাত্তরের রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা দের সন্তান ও নাতি নাতনী দের জন্য ভারতীয় সরকারের আর্থিক সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতায় ” নতুন ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী মুক্তিযোদ্ধা সন্তান স্কলারশিপ স্কিম” চালু করা হয়েছে।এই প্রোগ্রাম এর আওতায় বাংলাদেশের অভ্যন্তরে অধ্যয়নরত ২০০০ ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান করা হবে।

ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী মুক্তিযোদ্ধা স্কলারশিপ

নিয়মাবলী:

১. স্নাতক পর্যায়ে আবেদনকারী কে অবশই ২০১৭-২০২০ সালের মধ্যে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

২. উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে আবেদকারী কে অবশই ২০১৯-২০২০ সালের মধ্যে মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষা উত্তীর্ণ হতে হবে।

৩. আবেদনকারীর নিজ নামে ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে। Bank Routing Number

উল্যেখ করে ব্যাংক কর্মকর্তার স্বাক্ষরিত ব্যাংক স্টেটমেন্ট দাখিল করতে হবে।

৪.আবেদনের যোগ্যতা: উচ্চমাধ্যমিক পর্যায় এ ছাত্র দের মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় ন্যূনতম GPA 3 বা তদুর্ধ গ্রেড পেতে হবে।স্নাতক পর্যায়ের আবেদনকারী কে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক উভয় পরীক্ষায় নূন্যতম GPA 3

বা তদুর্ধ গ্রেড পেতে হবে।

৫. আবেদনপত্র ইংরেজি তে পূরণ করতে হবে। আবেদনপত্র ফরম মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।।

৬. আবেদন পত্রে এক কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন কপি যুক্ত করতে হবে।

৭. অভিভাবক এর মাসিক পারিবারিক আয়ের সনদপত্র দাখিল করতে হবে।

এটি সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বা পৌরসভার মেয়র বা প্রথম শ্রেণির গেজেটেড অফিসার কর্তৃক স্বাক্ষরিত হতে হবে।

৮. মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে সংরক্ষিত মুক্তিযোদ্ধা প্রমানক দাখিল করতে হবে।

৯. এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা র মার্কশিট ও সনদ এর সত্যায়িত ফটোকপি দাখিল করতে হবে।

১০. আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্র বা জন্মসনদ এর সত্যায়িত ফটোকপি দাখিল করতে হবে।

১১. আবেদনপত্র ডাকযোগে অথবা

সরাসরি জমা দেয়া যাবে।

১২. খামের উপরে লিখতে হবে:

“নতুন ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী মুক্তিযোদ্ধা সন্তান স্কলারশিপ স্কিম”

সচিব, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়,

সচিবালয় লিংক রোড, ঢাকা।

বৃত্তির পরিমাণ:

১. উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে আবেদনকারী এককালীন ২০,০০০ ( বিশ হাজার টাকা)।

২. স্নাতক পর্যায়ের আবেদনকারী

এককালীন ৫০,০০০ ( পঞ্চাশ হাজার টাকা)।

বৃত্তির সংখ্যা:

উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে ১০০০ জন।

স্নাতক পর্যায়ে ১০০০ জন।

সর্বমোট ২০০০ জন।

আবেদনের অযোগ্য:

১. যারা পূর্বে একবার এই বৃত্তি পেয়েছেন।

২. মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে যারা বৃত্তি পাচ্ছেন।

আবেদন শুরু: ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আবেদনের শেষ তারিখ: ১৫ অক্টোবর, ২০২০

বিশেষ দ্রষ্টব্য: জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগ এর ঠিকানা: মোহাম্মদ সানোয়ার হোসেন, উপসচিব ( প্রশিক্ষণ), মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়, সচিবালয় লিংক রোড, ঢাকা।ফোন: ০২-৯৫৫০৭১৭, ০২-৯৫৫৭১৭

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed.

%d bloggers like this: